1. abunayeem175@gmai.com : Abu Nayeem : Abu Nayeem
  2. sajibabunoman@gmail.com : abu noman : abu noman
  3. asikkhancoc085021@gmail.com : asik085021 :
  4. nshuvo195@gmail.com : Nasim Shuvo : Nasim Shuvo
  5. nomun.du@gmail.com : Agri Nomun : Agri Nomun
  6. rajib.naser@gmail.com : Abu Naser Rajib : Abu Naser Rajib
সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১, ০৯:৫৯ অপরাহ্ন

স্ত্রী-সন্তানকে হত্যার পর পুঁতে রাখায় ৪ জনের নামে মামলা

পাথরঘাটা (বরগুনা) প্রতিনিধি
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ৪ জুলাই, ২০২১

বরগুনার পাথরঘাটায় ৯ মাস বয়সী কন্যাসন্তান সামিরা আক্তার জুঁইসহ স্ত্রী সুমাইয়া বেগমকে হত্যার পর খালের পাড়ে পুঁতে রাখায় স্বামী শাহিন মিয়াকে প্রধান আসামি করে মামলা হয়েছে। শনিবার বিকালে সুমাইয়ার বাবা রিপন বাদশা বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেছেন।

মামলার অন্য আসামিরা হলেন- শাহিনের মা শাহিনুর বেগম (৪২), মামাতো ভাই ইমাম হোসেন (২২), ইমামের শ্যালক রিমনসহ অজ্ঞাত ২-৩ জন।

সরেজমিন জানা গেছে, দীর্ঘ দিন আগে পাথরঘাটা উপজেলার সদর ইউনিয়নের হাতেমপুর এলাকার রিপন বাদশার মেয়ে সুমাইয়ার সঙ্গে পার্শ্ববর্তী মৃত খলিলুর রহমানের ছেলে শাহিনের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। পরে তাদের মধ্যে শারীরিক সম্পর্ক হয়। এতে সুমাইয়া অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পরলে তার বাবা শাহিনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

সেই মামলায় শাহিন কারাভোগ করে বিয়ে করার শর্তে মুক্তি পায় এবং বিয়ে করে। এর পর থেকেই তাদের সংসারে কলহ লেগেই থাকতো। এ নিয়ে স্থানীয়ভাবে একাধিকবার সালিশ মীমাংসা হলেও একইভাবে কলহ চলতে থাকে তাদের মধ্যে।

গত বুধবার দুপুরে সুমাইয়ার বাবার বাড়িতে তার বাবা দাওয়াত করলে সেখানে শাহিন না গেলেও স্ত্রী-সন্তান দাওয়াত খেতে যায় শাহিনকে রেখে। সুইমাইয়া দাওয়াত খেতে যাওয়ায় শাহিন খুনের পরিকল্পনা করে বলে মনে করে প্রতিবেশীরা।

ওই রাতের কোনো এক সময় স্ত্রী ও সন্তানকে হত্যা করে বাড়ির পিছনের খালের পাড়ে গর্ত করে পুঁতে রাখে। পরে সুমাইয়ার পরিবার লোকজন খোঁজাখুঁজির পরে মা-মেয়েকে না পেয়ে বাবা রিপন বাদশা পাথরঘাটা থানায় জানায়। স্থানীয়রা বাড়ির পিছনে গর্ত দেখে সন্দেহ হলে পুলিশকে খবর দেয় পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে।

পাথরঘাটা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবুল বাশার জানান, স্ত্রী ও সন্তান হত্যার দায়ে শাহিনের মা শাহিনুর বেগম ও মামাতো ভাই ইমাম হোসেনকে আটক করা হয়েছে। প্রধান আসামিকে গ্রেফতার করার জন্য আমাদের কয়েকটি টিম কাজ করছে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বরগুনা মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরো খবর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।